১৯ জুলাই, ২০২৪, শুক্রবার

কাবুলে আটকে পড়া ৯ বাংলাদেশির তথ্য মিলেছে

Advertisement

তালেবানের ক্ষমতা দখলে টান টান উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে এ পর্যন্ত ৯ বাংলাদেশির অবস্থানের তথ্য পাওয়া গেছে। আফগানিস্তানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্বে থাকা জাহাঙ্গীর আলম এই তথ্য জানিয়েছেন।

জাহাঙ্গীর আলম গণমাধ্যমকে জানান, কাবুলে এখন পর্যন্ত তারা ৯ বাংলাদেশি থাকার তথ্য পেয়েছেন। এদের মধ্যে ৬ জন ব্র্যাকের কর্মী এবং তারা সেখানে ব্র্যাকের আবাসিক পরিচালকের বাসায় আশ্রয় নিয়েছেন। আর বাকি তিনজন কাবুলের কারাগারে বন্দি রয়েছেন।

ব্র্যাকের ৬ জন হলেন- ঢাকা জেলার করিম শিকদার, রংপুরের আসাদুজ্জামান, ঢাকার মোহাম্মদ সরফরাজ, যশোরের কামাল হোসেন, ফরিদপুর রফিকুল হক মৃধা ও নোয়াখালীর ইউসুফ হোসেন। তাদের মধ্যে করিম শিকদার সিনিয়র। তার সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা ১৮ আগস্টের ফ্লাইটে বাংলাদেশে ফিরে আসার চেষ্টা করছেন বলে জানান রাষ্ট্রদূত।

রাষ্ট্রদূত জানান, যে তিনজন কারাগারে বন্দি আছেন, তালেবান সেই কারাগার ভেঙে ভেতরে ঢুকে পড়েছে। সেখান থেকে ছাড়া পেয়ে মঈন আল মেসবাহ নামের এক বাংলাদেশি তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তার বাড়ি খুলনায়।

রাষ্ট্রদূত বলেন, কাবুলে পুল এ চরকি নামের একটি বড় কারাগার রয়েছে, সেখানে তিনজন বাংলাদেশি বন্দি ছিলেন। তালেবান ভেঙে প্রবেশ করার ফলে কয়েদিরা সব পালিয়ে গেছেন। তাদের মধ্যে একজন বাংলাদেশি মঈন আল মেসবাহ।

অন্য দুজন হলেন- ঢাকার ভাসানটেকের কাউছার সুলতানা ও নোয়াখালীর ওবায়দুল্লাহ। তারা সেখান থেকে বের হতে পেরেছেন কি না- নিশ্চিত হওয়া যায়নি। জানার চেষ্টা চলছে বলে জানান রাষ্ট্রদূত।

রাষ্ট্রদূত বলেন, কারাগার থেকে বের হতে পারা মঈনকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে যাতে পরবর্তী এভেইলেভল ফ্লাইটে তিনি দেশে ফিরে আসেন।

জাহাঙ্গীর আলম মূলত উজবেকিস্তানে বাংলাদেশ দূতাবাসে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত। আফগানিস্তানে বাংলাদেশের কোনো দূতাবাস না থাকায় তিনি আফগানিস্তানে রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন। জাহাঙ্গীর একইসঙ্গে কিরগিজস্তান ও তাজিকিস্তানেও রাষ্ট্রদূতের দায়িত্বে রয়েছেন।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement