১৯ জুলাই, ২০২৪, শুক্রবার

বরখাস্ত হতে পারেন বরিশালের মেয়র

Advertisement

বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুনিবুর রহমানের সরকারি বাসভবনে হামলা ও সংঘর্ষের দুটি মামলার অভিযোগপত্র আদালত গ্রহণ করলে আইন অনুযায়ী সাময়িক বরখাস্ত হতে পারেন বরিশার সিটি করপোরেশনের মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ।

এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনা নিয়ে তদন্ত হবে। তার নেতৃত্বেই এ কাজগুলো সেখানে করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, স্বাভাবিকভাবে ভালো কাজে স্থানীয় সরকার বিভাগ প্রতিনিধিদের প্রশংসিত করলেও মন্দ কাজের জন্যও শাস্তির বিধানও রাখা হয়েছে।কেও যদি দোষী হয় তাহলে তার অবশ্যই শাস্তি হবে। যদি (জনপ্রতিনিধি) বিরুদ্ধে মামলা এবং চার্জশিট হয়, তাহলে আমাদের সাসপেন্ড (সাময়িক বরখাস্ত) করার বিধান আছে। আইনে যেভাবে শাস্তির বিধান উল্লেখ আছে, এগুলো পর্যালোচনা করে যদি কিছু পাওয়া যায়, তাহলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আইনে বলা রয়েছে, ২০০৯’ এর ১২ নম্বর ধারায় মেয়র ও কাউন্সিলরদের সাময়িক বরখাস্ত করা প্রসঙ্গে বলা আছে, কোনো সিটি করপোরেশনের মেয়র অথবা কাউন্সিলরের অপসারণের ধারা ১৩ এর অধীন কার্যক্রম আরম্ভ করা হয়েছে অথবা তার বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলায় অভিযোগপত্র আদালত কর্তৃক গৃহীত হয়েছে, সেক্ষেত্রে সরকার লিখিত আদেশের মাধ্যমে, ক্ষেত্রমত, মেয়র বা কোনো কাউন্সিলরকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করতে পারবে।’ এ আইনের ১৩ নম্বর ধারায় মেয়র অথবা কাউন্সিলরদের অপসারণের বিষয়েও বিস্তারিত উল্লেখ রয়েছে।

বৃহস্পতিবার কার্যনির্বাহী পরিষদের এক জরুরি সভা শেষে গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহকে গ্রেফতার করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন (বিএএসএ)।

বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ দাবি করছে , ব্যানার অপসারণ করতে গিয়ে সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ইউএনও’র বাধার মুখে ইউএনও দম্ভোক্তি করে অশোভন আচরণ ও সবার সাথে দুর্ব্যবহার করতে থাকলে পরিস্থিতি শান্ত করতে মেয়র সেখানে গেলে তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন ইউএনও।

বৃহস্পতিবার বরিশালে সেরনিয়াবাত ভবনে সংবাদ সম্মেলনে মেয়র গাজী নঈমুল হোসেন লিটু এ অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে স্থানীয় সরকার বলেন, আসলে বাস্তবে যা ঘটেছিলো তা পর্যালোচনা করলে বোঝা যাবে ব্যপাটি। আমরা সব খোঁজখবর নিচ্ছি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এখন। এ ঘটনায় অবশ্যই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement