২২ জুন, ২০২৪, শনিবার

আর মাঠে ফেরা হলো না আম্পায়ার নাদির শাহের

Advertisement

আইসিসি প্যানেল আম্পায়ার নাদির শাহ আর নেই। ফুসফুসের ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াইয়ে আর পেরে উঠেননি তিনি। শুক্রবার ভোর পৌনে ৪টার দিকে রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর।

সপ্তাহখানেক আগেও হাসপাতালের বেডে শুয়েই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের ছবি পোস্ট করেছিলেন নাদির, জানিয়েছিলেন মাঠে ফিরতে আর অপেক্ষার তর সইছে না। কিন্তু এই মাঠের মানুষটির আর ফেরা হলো না মাঠে।

২০১৯ সালের অক্টোবরে জাতীয় লিগের ম্যাচ পরিচালনা করার সময় মাঠেই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এরপর থেকেই অনেকটা গৃহবন্দি হয়ে পড়েন তিনি। মাঠে ফেরার আকুতি জানালেও, শারীরিক অবস্থার উন্নতি না ঘটায় পেরে ওঠেননি।

তার মৃত্যুর খবর জানিয়ে বিসিবি পরিচালক আহমেদ সাজ্জাদুল আলম ববি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নাদির শাহ (১৯৬৪-২০২১)। আমাদের ভালোবাসার মানুষ, অতুলনীয় নাদির শাহ আর নেই। তার বিদেহী আত্মার প্রতি শান্তি কামনা করছি।’

খালেদ মাসুদ পাইলট লিখেছেন, ‘আমাদের প্রাণপ্রিয় সদা হাস্যোজ্জ্বল সাবেক ক্রিকেটার এবং আইসিসি প্যানেল আম্পায়ার নাদির ভাই আর নেই। আজ ভোর রাত ৩:৪৮ মিনিটে তিনি ধানমন্ডি আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন (নিশ্চয়ই আমরা আল্লাহর জন্য, আর নিশ্চয়ই তাঁর দিকে প্রত্যাবর্তনকারী)।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘মাত্র ৫৭ বছর বয়সেই ফুসফুসের ক্যানসারের সাথে লড়াই করতে করতে ক্লান্ত শ্রান্ত হয়ে সবাইকে ছেড়ে পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন আমাদের প্রিয় নাদির ভাই। আল্লাহ যেন উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন… আমিন ‘

নিজের পোস্টে জানাযার সময় জানিয়ে পাইলট আরও লিখেছেন, ‘জানাযার নামাজ আজ বাদ জুম্মা ধানমন্ডি ৭নং মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে।’

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক স্পিনার ও বর্তমান নির্বাচক আবদুর রাজ্জাক তার ফেসবুকে লিখেছেন, নাদির ভাই আপনাকে আমরা মিস করব কোন সন্দেহ নাই।সাথে এটাইচাইব যে আল্লাহ যেন আপনাকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করেন।আমরা সবাই নাদির ভাই এর কোন ব্যবহারে কষ্ট পেলে মনে না রেখে তাকে মাফ করে দেই।নাদির ভাই এর মত হাস্য উজ্জ্বল এবং পজেটিব মানুষ বেশ কম দেখা যায়।মাঠে আপনার ইংরেজি তে ঝাড়ি, কোন নতুন ট্যালেনটেড খেলয়াড় দেখলে তাকে উৎসাহ দেওয়া সবাই মিস করবে সন্দেহ নাই।কঠিন কিন্ত বাস্তবতা মেনে নেওয়া ছাড়া আমাদের কিছুই করার নাই।সময় হলে গন্তব্যে সবাই কেই যেতে হবে।

এছাড়াও দেশের সব সাংবাদিকরাও তার এই চলে যাওয়া মেনে নিতে পারছেন না। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করছেন শোক প্রকাশ।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement