৩ মার্চ, ২০২৪, রবিবার

এশিয়ান কাপের বাছাই পর্বে সরাসরি খেলবে বাংলাদেশ

Advertisement

এএফসির নিয়ম পরিবর্তণ হওয়ায় কপাল খুললো বাংলাদেশের। ২২ তম দল হিসেবে এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের তৃতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ পেলো লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।

আগের নিয়ম অনুযায়ী আট গ্রুপের প্রতিটিতে চতুর্থ স্থান পাওয়া দলের মধ্যে চার দল ও পঞ্চম হওয়া দল গুলোর মধ্যে আট দল সব মিলিয়ে ১২ দল নিয়ে আয়োজন করা হতো এশিয়ানকাপ বাছাই পর্বের প্লে অফের খেলা। সেই বিবেচনা করলে বাংলাদেশকে খেলতে হতো বাছাই পর্বে খেলার বাছাই পর্ব। বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাই পর্বের দ্বিতীয় ধাপে ই গ্রুপে বাংলাদেশের অবস্থান একেবারেই তলানিতে। ৬ ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের অর্জন মাত্র ২ পয়েন্ট। ভারত ও আফগানিস্তানের সাথে ড্রয়ে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে ১ পয়েন্ট করে পেয়েছে বাংলাদেশ।

এএফসির নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাছাই পর্বের একেবারে তলানিতে থাকা দলগুলির মধ্যে যে চারটি দলের পয়েন্ট একেবারে কম সেই চারটি দলকেই শুধু প্লে অফে খেলতে হবে। আর এই সিদ্ধান্তে ফলেই বাছাই পর্বে পঞ্চম স্থান পাওয়া দলগুলির মধ্যে উপরে থাকা তিন দল সরাসরি এশিয়ান কাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে খেলার সুযোগ পাচ্ছে। ইপরে থাকা দুই দল মিয়ানমার ও ইয়েমেনের সাথে নাম রয়েছে বাংলাদেশেরও। মূল পর্বে জায়গা পাওয়ার বাকি দুই টিকেটের জন্য ইন্দোনেশিয়া, চাইনিজ তাইপে, কম্বোডিয়া ও গুয়ামকে খেলতে হবে প্লে-অফ। বাছাইয়ের দ্বিতীয় ধাপে ৪০ দলের মধ্যে উত্তর কোরিয়া নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিল আগেই। ফলে ৩৯ দল আটটি গ্রুপ ভাগ হয়ে খেলেছে।

যৌথ বাছাইয়ের দ্বিতীয় ধাপের খেলা শেষে ২০২৩ এশিয়ান কাপের স্বাগতিক চিন এবং আট গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও চার সেরা রানার্সআপ মিলিয়ে ১৩ দল এশিয়ান কাপের মূল পর্বে সরাসরি জায়গা করে নিয়েছে। বাছাইয়ের আট গ্রুপে দ্বিতীয় স্থান পাওয়া বাকি তিন দল, তৃতীয় ও চতুর্থ হওয়া মোট ১৬ দল এবং উত্তর কোরিয়া সরে দাঁড়ানোয় পঞ্চম হওয়া সাত দলের মধ্যে উপরে থাকা তিন দল, মোট ২২ দল এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্বে খেলবে। ২০২৩ সালে চীনে এশিয়ান কাপ শুরু হবে ১৬ জুন।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement