১৯ মে, ২০২৪, রবিবার

ওমিক্রনে কাজ করেনা চীনের টিকা সিনোভ্যাক

Advertisement

করোনার রূপান্তরিত নতুন ধরন ওমিক্রনের বিরুদ্ধে মানবদেহে যথেষ্ট প্রতিরোধী শক্তি গড়ে তুলতে সক্ষম নয় চীনা ওষুধ কোম্পানি সিনোভ্যাকের করোনা টিকা। সাম্প্রতিক এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছেন হংকংয়ের একদল গবেষক।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের বরাত দিয়ে সোমবার এক প্রতিবেদনে ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে এ তথ্য।

ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিনোভ্যাকের করোনা টিকা করোনাভ্যাকের দুই ডোজ সম্পূর্ণ করেছেন- এমন ২৫ ব্যক্তির রক্তের নমুনা সম্প্রতি পরীক্ষা করেছেন দ্য ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের একদল গবেষক। তারা দেখতে পেছেন- ওমিক্রনকে ঠেকাতে রক্তরসে ন্যূনতম যে পরিমাণ অ্যান্টিবডির উপস্থিতি থাকা আবশ্যক, পরীক্ষায় অংশ নেওয়া স্বেচ্ছাসেবীদের কারোর রক্তের নমুনাতে তা পাওয়া যায়নি।

গবেষকরা ফাইজার-বায়োএনটেকের দুই ডোজ টিকা নেওয়া ২৫ জন ব্যক্তির রক্তের নমুনাও পরীক্ষা করেছেন। সেখানে তারা দেখেছেন, ওই ২৫ জনের মধ্যে ৫ জনের দেহে ওমিক্রনকে নিষ্ক্রিয় করার মতো প্রয়োজনীয় অ্যান্টিবডির উপস্থিতি রয়েছে।

দ্য ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের সংক্রামক রোগ বিভাগের অধ্যাক ও এই গবেষণাদলের প্রধান কাওয়াক ইউং ইউয়েন ব্লুমবার্গকে জানান, খুব শিগগিরই তাদের গবেষণা প্রতিবেদন আন্তর্জাতিক চিকিৎসা সাময়িকী ক্লিনিক্যাল ইনফেকশাস ডিজিজে ছাপা হবে। ইতোমধ্যে অনলাইনে তা প্রকাশিত হয়েছে।

চলতি বছর জুনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহারের ছাড়পত্র লাভ করে সিনোভ্যাকের করোনা টিকা করোনাভ্যাক। সে সময় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছিল, কোভিড সংক্রমণ ঠেকাতে ৮৪ শতাংশ কার্যকর করোনাভ্যাক।

চীনে করোনা টিকার দুই ডোজ সম্পূর্ণ করেছেন ২৬০ কোটি মানুষ। তাদের মধ্যে ১৪০ কোটিই নিয়েছেন সিনোভ্যাকের টিকা।

এছাড়া কোভ্যাক্সের মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ পর্যন্ত ২৩০ কোটি ডোজ করোনাভ্যাক টিকা পাঠিয়েছে সিনোভ্যাক।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement