২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২৩, রবিবার

কান চলচিত্র উৎসবে “লাল গালিচায় বাংলাদেশ” সব কৃতিত্বই রেহান মরিয়ম নূরের

Advertisement

এবারের কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭৪তম আসরে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করছে-‘রেহান মরিয়ম নূর’। অফিসিয়াল সিলেকশনের ইতিহাসে এই প্রথম বাংলাদেশি কোনো চলচিত্র একের পর এক সম্মান পাচ্ছে। পালে দে ফেস্টিভাল ভবনে লালগালিচায় হেঁটেছেন পর্দার পেছনে থাকা আট কলাকুশলীও।

পালে দে ফেস্টিভাল ভবনের সামনে গেল ৯ জুলাই চকচকে গাড়িতে চড়ে আসেন ‘রেহান মরিয়ম নূর’র টিম। লালগালিচার শুরুতে ফটো-সেশন শেষে বিশেষ সংবর্ধনা দিয়ে তাদের বরণ করে নেন আয়োজকরা। পরে পরিচালক আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ, প্রযোজক জেরেমি চুয়া এবং নির্বাহী প্রযোজক এহসানুল হক বাবুকে ডেকে নেন আয়োজকরা। আর অভিনেত্রী হিসেবে ছিলেন আজমেরী হক বাঁধন, চিত্রগ্রাহক তুহিন তামিজুল, প্রোডাকশন ডিজাইনার আলী আফজাল উজ্জল ও প্রকৌশলী হিসেবে ছিলেন শৈব তালুকদার ও কালারিস্ট চিন্ময়। অনুষ্ঠানটির আয়োজকদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ‘রেহান মরিয়ম নূর’ সহ আরও তিনটি স্থিরচিত্র প্রকাশিত হয়েছে।

বিশ্বের বিভিন্ন গণমাধ্যমজুড়ে এখন সমাদৃত হচ্ছে বাংলাদেশের ‘রেহান মরিয়ম নূর’ ছবিটি।। ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারতসহ বিভিন্ন দেশে ছবিটির ইতিবাচক পর্যালোচনা প্রকাশিত হয়েছে। রেহান চরিত্রে অভিনীত আজমেরী হক বাঁধন এবং পরিচালক হিসেবে সাদের প্রশংসায় মুখর মিডিয়া জগত।

পালে দে ফেস্টিভাল ভবনের প্রেক্ষাগৃহে গত ৭ জুলাই ছবির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়েছিলো। প্রদর্শনী শেষে দর্শকরা দাঁড়িয়ে অভিবাদন না দিয়ে পারেননি। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের আলোকচিত্রীদের সামনে দাঁড়িয়ে অভিবাদন পান সাদ, বাঁধন, জেরেমি চুয়া এবং এহসানুল হক বাবু।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement