২ মার্চ, ২০২৪, শনিবার

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হলেই গ্রেপ্তার: ডিএমপি কমিশনার

Advertisement

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে আগামীকাল থেকে সাত দিনের ‘কঠোর লকডাউনে’ জরুরি সেবার বাইরে কোনো ধরনের যানবাহন ঢাকায় চলতে দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

আজ বুধবার আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, সরকার জরুরি সেবা বলতে যে প্রতিষ্ঠানগুলোকে বুঝিয়েছে, পণ্যবাহী গাড়িগুলোকে বুঝিয়েছে এটার বাইরে কোনো ধরনের যানবাহন আমরা এই শহরে চলতে দেবো না। কাঁচা বাজার করা, ওষুধ কেনা, কোভিড টেস্ট বা টিকা দিতে যাওয়া-এসব ক্ষেত্রে রিকশা ব্যবহার করা যাবে। তবে যন্ত্রচালিত যানবাহন ব্যবহার করতে পারবে না। ভিড় বেশি হয় জন্য কাঁচাবাজারের বেশিরভাগ দোকান আমরা রাস্তায় নিয়ে আসবো। প্রয়োজনে আধা কিলোমিটারজুড়ে নিরাপদ দূরত্বে দোকান বসানো হবে। খাবারের দোকান থেকে খাবার নিতে পারবে, কেউ বসে খেতে পারবে না। যিনি বের হন, মাস্ক না পরে কেউ যেন বের না হন সেটি আমরা নিশ্চিত করবো।

তিনি আরও বলেন, আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ব্যবহার করে বিদেশ থেকে যারা আসবেন, তাদের পরিবহনের জন্য গাড়ি ব্যবহার করা যাবে। সে ক্ষেত্রে টিকিট ও পাসপোর্ট প্রদর্শন করতে হবে। একটু অসুবিধা হবে যদি তাকে কেউ আনতে যেতে চায়। সে ক্ষেত্রে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের সম্মুখিন হতে হবে। সন্তোষজনক জবাব পেলে আমরা তাকে ছেড়ে দেবো।

সব অফিস-আদালত, শপিং মল, যে কোনো ধরনের সমাবেশ বন্ধ থাকবে। নানা অজুহাতে মানুষ রাস্তায় বের হয়, কারো উত্তরে যদি আমরা সন্তুষ্ট না হই তাহলে তাকে আইনি ঝামেলায় পড়তে হবে। কেউ যানবাহন ব্যবহার করলে মোটর যান আইনে আমরা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। ম্যাজিস্ট্রেট থাকলে জরিমানার ব্যবস্থা করা হবে। এ ছাড়া, দণ্ডবিধির ২৬৯ ধারা আমরা প্রয়োগ করবো। নিয়মিত মামলা রুজুসহ গ্রেপ্তার করে আদালতে বিচারের জন্য পাঠাবো। এটি এর আগে আমরা কখনো করিনি। এ রকম হতে পারে ডিএমপিতে প্রথম দিনে পাঁচ হাজার লোক গ্রেপ্তার হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে আদালতে চালান করা হয়েছে। সঙ্গত কারণ ছাড়া বাইরে বের হলেই গ্রেপ্তার করবো, মামলা দেবো এবং আদালতে চালান করবো-বলেন শফিকুল ইসলাম।

ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, পুলিশ আইন প্রয়োগে যত শক্ত হবে, আপনার পরিবারের সদস্যরা তত বেশি নিরাপদ থাকবে। আমি সবাইকে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানাবো। পুলিশের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে ফাঁকি দিতে পারবেন বা ভাইরাল করে সমালোচনার মুখে ফেলতে পারবেন কিন্তু আপনার পরিবারকে এই ঝুঁকি থেকে দূরে রাখতে পারবেন না।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement