১৮ জুলাই, ২০২৪, বৃহস্পতিবার

ঢাকাকে বিচ্ছিন্ন রাখার প্রাণান্ত চেষ্টা

Advertisement

ঢাকাসহ দেশের বেশির ভাগ এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টসহ আরো একাধিক ভ্যারিয়েন্ট। ভয়াবহ এ পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকার এবার ঢাকার পাশের নতুন কয়েকটি এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করেছে। কার্যত রাজধানীর সঙ্গে অন্য সব এলাকার যাতায়াত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে। ঢাকা থেকে সারা দেশে দূরপাল্লার বাস ও সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে ট্রেন চললেও যেসব এলাকায় লকডাউন জারি রয়েছে, সেসব জায়গায় থামবে না। স্বাস্থ্যবিধি মানতে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে গণপরিবহন, শপিং মলগুলোতেও। বিমান চলাচলে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেই বলে জানিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।

করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে রাজধানীকে সারা দেশ থেকে অনেকটা বিচ্ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ঢাকার আশপাশের চারটি জেলাসহ মোট সাতটি জেলায় জরুরি সেবা ছাড়া সব ধরনের চলাচল ও কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। এমন বিধিনিষেধ আজ মঙ্গলবার সকাল ছয়টা থেকে শুরু হয়ে চলবে ৩০ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, মঙ্গলবার ভোর থেকেই ঢাকায় কোনো দূরপাল্লার যাত্রীবাহী যানবাহন প্রবেশ করতে পারছে না। যদিও বৃষ্টির কারণে যানজট সৃষ্টি হওয়ায় আটকে যাওয়া ঢাকাগামী বাসগুলোকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়েছে। তবে ঢাকার বাইরে কোনো বাস যেতে পারছে না।

সোমবার (২১ জুন) ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বিধিনিষেধে গাড়ি চলাচলের বিষয়ে বলেন, যে সাতটি জেলাতে লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছে তার যেকোনো একটিকে এড়িয়ে ঢাকা শহরের বাস প্রবেশ করা সম্ভব নয়। ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ রুটে দূরপাল্লার সব বাস গাজীপুর হয়ে চলাচল করে। উত্তরবঙ্গের সব বাস গাজীপুরের চন্দ্রা হয়ে চলে। দক্ষিণবঙ্গের ২১ জেলার সব বাস মানিকগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলা হয়ে যাতায়াত করে। সিলেট ও চট্টগ্রামের বাস নারায়ণগঞ্জ হয়ে চলে। সুতরাং কোনোভাবেই দূরপাল্লার বাস চলাচল সম্ভব নয়।

ট্রেন চলছে সীমিত পরিসরেঃ

বাস বন্ধ হলেও চালু রয়েছে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল। তবে যেসব এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে সেসব জেলায় ট্রেন থামবে না। 

সোমবার (২১ জুন) রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক প্রজ্ঞাপনের আলোকে লকডাউনের আওতায় থাকা ঢাকার পার্শ্ববর্তী সাত জেলার রেল স্টেশনে ট্রেন থামবে না। যেসব জেলায় রেল স্টেশন আছে এবং লকডাউন করা হয়েছে সেইসব স্টেশনেও থামবে না।

ঢাকা থেকে গাজীপুরের টঙ্গী ও জয়দেবপুর হয়ে যে সব আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে সেগুলো ওই স্টেশনে থামছে না। নারায়ণগঞ্জ হয়ে চলে শুধু মেইল ও লোকাল ট্রেন। করোনার কারণে এসব ট্রেন বন্ধ রয়েছে। 

খোলা রয়েছে আকাশপথঃ

নতুন এ নির্দেশনায় খোলা রয়েছে আকাশপথ। যেহেতু লকডাউন জারি করা কোনো জেলাতে বিমানবন্দর নেই, সেহেতু ফ্লাইট পরিচালনা করতে কোনো সমস্যা নেই৷ মঙ্গলবার সকাল থেকে আকাশপথ খোলা থাকায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, যশোর ও নীলফামারীর সৈয়দপুরে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট পরিচালিত হচ্ছে।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement