২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, সোমবার

ঢাকা ম্যারাথনের মিশনে রনো ও সেইফু

Advertisement

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথনের মুকুট ধরে রাখার মিশনে নামছেন ভিনসেন্ট কিপসাং রনো ও মুলু সেবোকা সেইফু। গত বছর পুরুষ বিভাগে সেরা কেনিয়ান রনো ও নারী বিভাগে সেরা ইথিওপিয়ার সেইফুকে এবারও ফেভারিট মনে করা হচ্ছে।

২০১৭ সালের আন্তর্জাতিক অ্যাথলেটিকস সংস্থা আয়োজিত ক্রস-কান্ট্রি চ্যাম্পিয়নশিপে পদকজয়ী রনো গত বছর তেলআবিব ম্যারাথন জিতেছেন। ফ্রাঙ্কফুর্ট, রটারডাম ম্যারাথন ও রিলে হাফ ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করা রনো নিজেকে বিশ্বমানের দৌড়বিদ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। সেইফু নিয়মিত খেলছেন দুবাই, দেগু, জাকার্তা, গুয়াংজু, পার্থ, মেলবোর্ন, টরন্টো, মুম্বাই, ভ্যালেন্সিয়া ও লন্ডন ম্যারাথনে।

২০০৩ সালে ভ্যালেন্সিয়া ও ২০০৪ সালে মুম্বাই ম্যারাথনজয়ী এ দূরপাল্লার দৌড়বিদ এবারের আয়োজনের অন্যতম আকর্ষণ। মুজিব বর্ষ উদযাপনের অংশ হিসেবে ২০২১ ও ২০২২ সালে ম্যারাথন আয়োজিত হয়। সে ধারাবাহিকতায় এবারের আসর অনুষ্ঠিত হবে শুক্রবার। ভোর ৫টা ৩০ মিনিটে বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার থেকে শুরু হবে ম্যারাথন; ৩০০ ফিট রাস্তা হয়ে কাঞ্চন ব্রিজ অতিক্রম করে একই পথে ফের দৌড়ে বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে এসে শেষ হবে এ প্রতিযোগিতা।

এলিট রানার ফুল ম্যারাথন বিভাগে কেনিয়ার আট পুরুষ ও পাঁচ নারী, ইথিওপিয়ার পাঁচজন করে নারী ও পুরুষ, ইউক্রেনের একজন করে নারী ও পুরুষ, মরক্কো ও দক্ষিণ আফ্রিকার দুজন পুরুষ, রুয়ান্ডার একজন পুরুষ, লিথুয়ানিয়ার একজন নারী প্রতিযোগী অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধন করেছেন।

হাফ ম্যারাথনে কেনিয়া ও উগান্ডার একজন করে পুরুষ ও নারী, ইউক্রেনের একজন পুরুষ, মরক্কোর দুই পুরুষ ও দুই নারী প্রতিযোগী নিবন্ধন করেছেন। কোচ ও টেকনিক্যাল অফিসিয়াল হিসেবে দুই স্প্যানিশ, এক ডাচ, ছয় ভারতীয় ও এক ইথিওপিয়ান এ প্রতিযোগিতায় থাকছেন।

আন্তর্জাতিক নিয়ম মেনে ফুল ম্যারাথন ৪২.১৯৫ কিলোমিটার এবং হাফ ম্যারাথন ২১.০৯৭ কিলোমিটার দূরত্বে অনুষ্ঠিত হবে। এ আয়োজনে ২ হাজার ১৫৫ দৌড়বিদের অংশগ্রহণ করার কথা। সাফ দৌড়বিদদের মধ্যে ফুল ম্যারাথনে ১২ পুরুষ, ৯ নারী এবং হাফ ম্যারাথনে ১০ পুরুষ ও ১২ নারী অংশগ্রহণ করবেন। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও মালদ্বীপ থেকে সর্বমোট ৪৩ সাফ দৌড়বিদ নিবন্ধন করেছেন। এ ছাড়া বাংলাদেশ থেকে ফুল ম্যারাথনে ৫২৬ জন ও হাফ ম্যারাথনে ১ হাজার ৫৩১ দৌড়বিদ অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধন করেছেন।

‘ম্যারাথনের টেকনিক্যাল দিকটি দেখছে বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন। দূরত্ব পরিমাপ করেছেন ভারতীয় বিশেষজ্ঞ টেকনিক্যাল স্টাফরা’—গণমাধ্যমকে বলছিলেন বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রকিব মন্টু। এ কর্মকর্তা যোগ করেন, ‘এলিট রানার বিভাগে বিশ্বমানের বেশ কয়েকজন অ্যাথলেট নিবন্ধন করেছেন, যা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ঢাকা ম্যারাথনকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলবে।’

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement