২২ জুন, ২০২৪, শনিবার

খোঁজ মিলছে না তালেবানের দুই শীর্ষ নেতার!

Advertisement

তালেবানের দুই শীর্ষ নেতা গত কয়েক দিন ধরেই প্রকাশ্যে নেই। এর মধ্যে রয়েছেন সর্বোচ্চ নেতা এবং ওসামা বিন লাদেনের সাবেক দেহরক্ষী দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী মোল্লা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা এবং নতুন সরকারের উপপ্রধানমন্ত্রী মোল্লা আবদুল গণি বারাদার।

প্রকাশ্যে অনুপস্থিতির কারণে তাদের অবস্থান এবং স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। অনেক গণমাধ্যমে ক্ষমতার ভাগ বাটোয়ারা, সম্পদ এবং কথিত বিয়ের নামে অপহৃত কিশোরীদের বন্টন নিয়ে নিজেদের অন্তকোন্দলে খুনোখুনিরও গুজব উঠেছে।

প্রায় এক মাস হতে চললো আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান। এর মধ্যে সর্বোচ্চ নেতা মোল্লা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদাকে কোথাও দেখা যায়নি। তবে তার মৃত্যুর গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন তার এক মুখপাত্র।

তালেবানের সবচেয়ে পরিচিত এবং স্বীকৃত মুখ হলেন মোল্লা আবদুল গণি বারাদার। গত কয়েক দিন ধরেই তিনি প্রকাশ্যে আসছেন না। একারণে অনেকেই উদ্বেগ জানাচ্ছেন। কাতারে তালেবানের রাজনৈতিক কার্যালয়ের প্রধান হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। যদিও আফগানিস্তানে সবচেয়ে বেশি আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার পরিকল্পনাকারী ভাবা হয় তাকে।

দুই শীর্ষ নেতার অবস্থান গোপন থাকায় তালেবানের অভ্যন্তরীণ বিবাদ নিয়ে গুঞ্জন ডালপালা মেলছে। তবে মূল প্রশ্নটি হলো আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ কি এড়াতে পারবে তালেবান।

এর আগে বারাদারের একজন ডেপুটির হাতে লেখা নোটের ছবি প্রকাশ করে তালেবান। এতে বলা হয়েছে তিনি কান্দাহারে আছেন। পরে বারাদারের একটি অডিও বার্তা প্রকাশ করা হয়। তবে ভিডিও না থাকায় এনিয়ে আরও প্রশ্ন ওঠে। অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া এসব অডিও এবং ছবিতে এগুলো কখন ধারণ করা তা নিয়েও কিছু বলা হয়নি।

গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে তালেবান মুখপাত্র সুহাইল শাহিন টুইটারে লিখেছেন, ‘ইসলামিক আমিরাত অব আফগানিস্তানের উপপ্রধানমন্ত্রী মোল্লা বারাদার এক অডিও বার্তায় সেই সব দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন, যাতে বলা হচ্ছে তিনি সংঘাতে আহত বা নিহত হয়েছেন। তিনি বলেছেন, এগুলো মিথ্যা এবং সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।’

সূত্র- তেলো নিউজ, আল জাজিরা

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement