২২ জুন, ২০২৪, শনিবার

পেঁয়াজের আমদানি বাড়ায়, কমেছে দাম

Advertisement

কিছুদিন পেঁয়াজ আমদানি কম থাকায় বৃদ্ধি পেয়েছিল পেঁয়াজের দাম। দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আবার পর্যাপ্ত পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বন্দরের পাইকারি ও খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে দুই টাকা থেকে তিন টাকা। 

দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পাইকারদের বন্দর এলাকায় ভিড় করতে দেখা গেছে। আবার  পেঁয়াজ কাঁচা পণ্য হওয়ায় বন্দর থেকে বেসরকারি অপরাটের হিলি পানামা কর্তৃপক্ষ দ্রুত ছাড়করণ করতে সবধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন।

হিলি স্থলবন্দর এবং খুচরা বাজারে দেখা যায়, বন্দরের ভিতরে ভারত থেকে সারি সারিভাবে প্রবেশ করছে পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক। আবার আমদানি বেশির হওয়ার কারণে খুচরা বাজারে প্রকারভেদে সবধরনের পেঁয়াজের দাম কেজিতে দুই থেকে তিন টাকা করে কমেছে। ফলে সাধারণ ক্রেতাদের মাঝে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে। চলতি সপ্তাহের গেল শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর)  বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩০-৩২ টাকা কেজি দরে। আর সেই পেঁয়াজ আমদানি বাড়ার কারণে মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) দাম কমে বিক্রি হচ্ছে ২৮ টাকা কেজি দরে।

পেঁয়াজের দাম কমার কারণ হিসেবে হিলি স্থলবন্দরের একজন আমদানিকারক, দেশের বাজারে চাহিদা থাকায় এই বন্দর (হিলি স্থলবন্দর) দিয়ে পেঁয়াজের আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে। আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে স্থানীয় বাজারে পণ্যটির সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় দাম কমেছে। শুধু পেঁয়াজ নয় সবধরনের কাঁচা পণ্যের নিয়মই এটি। যদি আমদানি বৃদ্ধি পায় তাহলে দাম কমে যায়।

হিলি পানামা বন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন প্রতাব মল্লিক বলেন, এই বন্দরের আমদানি করা সকল পণ্য দ্রুত ছাড়করণে আমরা ব্যবসায়ীদের সবধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি।  যেহেতু পেঁয়াজ কাঁচা পণ্য তাই বন্দর থেকে পাইকারদের কাছে দ্রুত ছাড়করণ করে দেশের বাজারে সরবরাহ করতে সার্বিক সহযোগিতা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে হিলি কাস্টমসের তথ্য মতে, এ সপ্তাহের প্রথম দিন শনিবার ভারত থেকে মাত্র ছয়টি পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করে। তবে এর পরের দুদিনে রোববার ও সোমবার ভারত থেকে ৬০টি পেঁয়াজবোঝাই ট্রাকে এক হাজার ৭৪৬ মেট্টিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement