২২ জুন, ২০২৪, শনিবার

ফোনালাপ ফাঁস ও আড়িপাতা রোধে রিট শুনানি

Advertisement

ফোনালাপ ফাঁস ও আড়িপাতা রোধে হওয়া রিটের শুনানি আজ রোববার। এই রিটে তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এম.ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বিত ভার্চুয়াল বেঞ্চে এ শুনানি হবে।  

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এবং বিটিআরসির চেয়ারম্যানকে রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

এর আগে এই রিট আবেদন প্রথম শুনানি হবার কথা ছিলো ১৬ই আগস্ট। পরে রাষ্ট্রপক্ষ নথি পর্যালোচনার জন্য সময় চাইলে তা পিছিয়ে নেয়া হয়  ৩১ আগস্ট। সেদিনও রাষ্ট্রপক্ষ সময়ের আবেদন করলে রিট আবেদনের শুনানি পিছিয়ে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মুলতুবি রাখা হয়। আদালতে ওইদিন রাষ্ট্রপক্ষের শুনানতে ছিলেন, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার এবং রিট আবেদনকারীদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার জানিয়েছিলেন যে রিট আবেদনে অনেক নথিপত্র যুক্ত হওয়ায় রাষ্ট্রপক্ষে নথি পর্যালোচনা ও প্রস্তুতির জন্য সময় প্রয়োজন। ছয় সপ্তাহ সময় চাইলেও আদালত দুই সপ্তাহ সময়ের আবেদন মঞ্জুর করেন।

এরও আগে গত ১০ই আগস্ট হাইকোর্টের দশজন আইনজীবী ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনায় তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট আবেদন দায়ের করেছিলেন।

আলোচ্য রিটে ২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত অন্তত ২০টি ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনা উল্লেখ করা হয়েছে।

সংবিধানের ৩৯ ও  ৪৩ অনুচ্ছেদের নাগরিকের যোগাযোগের গোপনীয়তার যে অধিকার তার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন হচ্ছে এই আড়িপাতার ঘটনার মধ্য দিয়ে। তাই বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে রুল চাওয়া হয়েছে।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement