১৭ জুন, ২০২৪, সোমবার

বিশ্বে করোনার ভারতীয় ধরন সংক্রমণের দাপট: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

Advertisement

বিশ্বে করোনার ডেল্টা প্রজাতির সংক্রমণের দাপট বাড়ছে বলে দাবি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউেএইচও)। করোনার এই ধরনটি ভারতে প্রথম ধরা পড়ায় অনেকেই একে ভারতীয় ধরন বলে জানিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্যা স্বামীনাথনের আশঙ্কা, বিশ্ব জুড়ে করোনার ডেল্টা প্রজাতির সংক্রমণ যে হারে বাড়ছে, তাতে এটি শীঘ্রই প্রধান সংক্রামক হিসেবে চিহ্নিত হবে।

সৌম্য স্বামীনাথন গতকাল শনিবার বার্তা সংস্থা এএফপিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সতর্ক করে বলেন, ‘ভারতে আজ আমরা মহামারির যে বৈশিষ্ট্যগুলো দেখছি, তা এটাই ইঙ্গিত করছে যে এটা অত্যন্ত দ্রুত ছড়িয়ে পড়া করোনার ধরন।’

শুক্রবার একটি সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউেএইচও)র প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্যা জানান, “সংক্রমণের সংখ্যার নিরিখে ডেল্টা প্রজাতি বিশ্ব জুড়ে দ্রুত প্রভাব বিস্তার করছে।” এছাড়াও জার্মানির নতুন কোভিড টিকা ‘কিউরভ্যাক’-এর কার্যকারিতা হু-র মানদণ্ড (৫০ শতাংশ) পার করতে পারেনি বলেও হতাশা ব্যক্ত করেছেন সৌম্যা। 

ভারতে করোনার যে ধরনটি ছাড়াচ্ছে, সেটি ‘বি.১.৬১৭’ নামে পরিচিত। করোনার এই ধরনটি ভারতে গত বছরের অক্টোবরে প্রথম শনাক্ত হয়। এই ধরনটিকে অতি সংক্রামক বলছেন বিশেষজ্ঞরা। 

চিকিৎসকদের মতে, করোনার ডেল্টা প্রজাতি আলফার থেকে বহু গুণ বেশি সংক্রামক। ব্রিটেন, রাশিয়ায় তো বটেই জার্মানিতেও টিকাকরণ সত্ত্বেও তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে বলে সে দেশের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। অন্যদিকে, আফ্রিকার বিভিন্ন দেশেও পর্যাপ্ত টিকাকরণ না হওয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

প্রসঙ্গত, ট্রায়ালে ‘কিউরভ্যাক’-এর কার্যকারিতা মাত্র ৪৭ শতাংশ। কিউরভ্যাক’ প্রস্তুতকারী সংস্থা জানিয়েছে, জার্মানিতে করোনার অন্তত ১৩টি প্রজাতির সংক্রমণ দেখা গিয়েছে। অন্যদিকে, ব্রিটেন এবং রাশিয়ায় সংক্রমণ ক্রমশই বাড়ছে। আফ্রিকার নামিবিয়া, সিয়েরা লিয়োন, লাইবেরিয়া এবং রোয়ান্ডায় গত সপ্তাহে সংক্রমণ প্রায় দ্বিগুণ বেড়েছে বলে জানিয়েছে হু। 

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement