২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩, বৃহস্পতিবার

মগবাজারে বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও ১ জনের মৃত্যু

Advertisement

রাজধানীর মগবাজার এলাকায় ভবন বিস্ফোরণের ঘটনায় দগ্ধ ইমরান হোসেনের (২৫) মৃত্যু হয়েছে। তার শরীরের ৯০ শতাংশ পোড়া ছিল।

  এই নিয়ে এ ঘটনায় মোট নয়জনের মৃত্যু হলো।

বুধবার (৩০ জুন) সকাল সাড়ে ৬টায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

ওই ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় আইসিইউতে সকাল সাড়ে ৬টায় ইমরান নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার শরীরের ৯০ শতাংশ দগ্ধ ছাড়াও শ্বাসনালী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। প্রথম থেকেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিল ইমরান। সবশেষ আজ সকালে তার মৃত্যু হলো। এ ঘটনায় আরও চারজন বার্ন ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে নুরুন্নবী ও রাসেলের অবস্থা সংকটাপন্ন। একই ঘটনায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আরও তিনজন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত ইমরানের বোন আইরিন জানান, তাদের বাসা শান্তিনগর এলাকায়। ইমরান তার স্ত্রীকে নিয়ে মগবাজার এলাকায় থাকতেন। ৩ বছর আগে বিয়ে করে তিনি বিয়ে করেন। তাদের কোনো সন্তান নেই।  দুই বছর ধরে ইমরান ওয়ারলেসে ‘ব্যাঙ্গল মিট’ নামে মাংসের দোকানে সেলসম্যানের চাকরি করছিলেন। ওইদিন সন্ধ্যায় খবর পান মগবাজার এলাকায় তাদের দোকানের পাশে বিস্ফোরণ হয়েছে। ইমরানকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। পরে বার্ন ইনস্টিটিউটে গিয়ে তাকে আহতাবস্থায় দেখতে পান তিনি।

এর আগে রোববার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় রাজধানীর মগবাজার ওয়্যারলেস গেট এলাকায় ভবন বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত সাতজনের মৃত্যু হয়েছে।  এই নিয়ে এ ঘটনায় মোট নয়জনের মৃত্যু হলো। এ ঘটনায় আরও ৩৯ জন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল ও বার্ন এবং শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ১৬, হলি ফ্যামিলিতে আহত ২ জন, আদ-দ্বীন হাসপাতালে আহত ২ জনসহ মোট ৬৪ জন চিকিৎসাধীন।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement