১৯ মে, ২০২৪, রবিবার

যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিন কার্ডের আবেদন করেছেন শাকিব খান

Advertisement

দেশ ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হচ্ছেন ঢাকাই সিনেমার শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। সিনে পাড়ায় কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে এ খবর। যদিও তার পক্ষ থেকে সরাসরি কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি, তবে যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী হওয়ার জন্য তিনি যে আবেদন করেছেন, এ খবর সত্যি।

খবরটি জানিয়েছেন শাকিবের নতুন সিনেমা ‘গলুই’-এর প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘শাকিব যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী বসবাসের জন্য আবেদন করেছেন। যে কারণে তাকে ছয় মাস সেখানে থাকতে হবে। ইতোমধ্যে এক মাস হয়েছে।’

গত নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে যান শাকিব খান। কথা ছিল, সেখানে দুটো অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এবং কিছু দিন অবকাশ যাপন করে ডিসেম্বরেই ফিরে আসবেন তিনি। কিন্তু দিন দুয়েক আগে জানা যায়, সহসাই ফিরছেন না এ নায়ক।

যুক্তরাষ্ট্রে থেকেই সিনেমা করার ঘোষণা দিয়েছেন শাকিব। আগামী জানুয়ারিতে শুটিং শুরু হবে। টানা চিত্রায়ন শেষে আসন্ন ঈদেই আন্তর্জাতিকভাবে সিনেমাটি মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তার। এটি পরিচালনা করবেন হিমেল আশরাফ।

শাকিবের টানা কয়েক মাস যুক্তরাষ্ট্রে থাকার খবর প্রকাশ্যে আসতেই মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে সেখানে তার স্থায়ী হওয়ার বিষয়টি। জানা গেছে, একজন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী নেপালি আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন করেছেন কিং খান।

বলে রাখা প্রয়োজন, যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার জন্য বেশ কয়েকবার ভিসার আবেদন করেছিলেন শাকিব খান। কিন্তু একবারও তা গৃহীত হয়নি। অবশেষে গত নভেম্বরে দেশটির ভিসা পান তিনি। এরপর ১২ নভেম্বর উড়াল দেন। বাইডেনের দেশে গিয়ে চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস ও ঢালিউড ফিল্ম অ্যান্ড মিউজিক অ্যাওয়ার্ডসের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন শাকিব।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement