১৭ জুন, ২০২৪, সোমবার

ফের পুরনো চেহারায় রাজধানী

Advertisement

টানা দুই সপ্তাহ বন্ধ থাকার পর রাজধানীসহ সারাদেশে গণপরিবহন চালু হয়েছে। এ ছাড়া শপিংমল ও দোকানপাট খুলেছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) রাজধানীর বিভিন্ন রুটে বাস চলতে দেখা গেছে। রাজধানীতে সকালে বিভিন্ন জায়গায় অফিসগামীদের ব্যস্ততা লক্ষ্য করা গেছে। রাস্তাগুলোতে ছিলো তীব্র যানজট। বিভিন্ন দোকানপাট খুলতে দেখা গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে খোলা হয় শপিংমলগুলোও।

আজ ভোর থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন রুটে ছোট-বড় বাস, সিএনজিচালিত অটো রিকশা, ভাড়ায়চালিত মোটরসাইকেল, টেম্পুসহ বিভিন্ন পরিবহনের যাত্রী চলাচল শুরু হয়। ভোর বেলায় পরিবহন ও যাত্রী সংখ্যা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে রাস্তায় গণপরিবহনসহ অন্যান্য যানবাহনের সংখ্যা বাড়তে থাকে।

রাজধানীর বাস টার্মিনালগুলোতে যাত্রীচাপও চোখে পড়ার মতো। ঈদের আগে বাড়তি চাপ এড়াতে ঢাকা ছাড়ছেন অনেকেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে একটি আসন ফাঁকা রেখে যাত্রী বসানো হলেও পরিবহন কোম্পানির পক্ষ থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার না দেওয়ার অভিযোগ করেন অনেকেই। সময় গড়ালে সামনের দিনগুলোতে আরও যাত্রী বাড়াবে বলে আশাবাদ পরিবহন কোম্পানিগুলোর।

রাজধানীর ধানমন্ডি, কলাবাগান, শাহবাগ, গুলিস্তান মতিঝিল, পুরানা পল্টন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, দুই সপ্তাহ লকডাউন শেষে রাস্তায় সকাল থেকেই লোকজনের উপস্থিতি অনেক বেশি। বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে মোড়ে বাসের হেলপারদের উঁচু গলায় যাত্রীদের ডাকতে দেখা যায়। আর আসন্ন ঈদকে কেন্দ্র করে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরার জন্য একাধিক ব্যাগ নিয়ে বহু যাত্রীকে বাসে উঠতে দেখা যায়।

সামনে রেখে ১৫ জুলাই থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত চলমান কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করে মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ১৫ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত চলমান কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল থাকবে। জনসাধারণের যাতায়াত, ঈদ-পূর্ববর্তী ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা, দেশের আর্থসামাজিক অবস্থা এবং অর্থনৈতিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এ সময়ে জনসাধারণকে সতর্ক থাকা, মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisementspot_img
Advertisement

ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

Advertisement